পিরিয়ডের ব্যথা কমানোর ৮টি উপায়!

 

ঋতুস্রাব মেয়েদের স্বাভাবিক একটি বিষয়। আর এই সময়ে পেটে ব্যথা কম বেশি সব মেয়েদের হয়ে থাকে। অনেকের ব্যথার পরিমাণটা এত বেশি হয়ে থাকে যে মাসিকের সময় তাদের স্বাভাবিক কাজকর্মে বাধা সৃষ্টি হয়।

 

যে কোন মেয়ের জীবনের যৌবনপ্রাপ্তির পর এটি একটি নিয়মিত ঘটনা।এ সময়টাতে কিছুটা অস্বস্তি, ক্র্যাম্পিং (মাংস জমাট বেধে ব্যথা হওয়া), পেটে তীব্র ব্যাথা অনুভূত  হয়ে থাকে।এ সময়টিতে অনেক নারী অফিস যাওয়ার কথা ভাবলেই বিরক্তি বোধ করে।

 

যদিও পিরিয়ডের এ  ব্যথা সম্পূর্ণ কমানোর কোনও উপায় নেই। তবে কিছু জিনিস মেনে চললে এ তীব্র যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মেলে। তবে পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোম বা কোনও গুরুতর কারণেও হতে পারে এই ব্যথা। তাই এ সময়টায় অবশ্যই ডাক্তারের  পরামর্শ নেয়া উচিত।ঔষধ খাওয়া ছাড়াও ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যা পেট ব্যথা অনেকটা কমিয়ে দেয়। আসুন জেনে নেওয়া যাক ঘরোয়া উপায়গুলো।

 

১। গরম পানির প্যাক

পেটে ব্যথার জায়গায় গরম পানির সেঁক দিতে পারেন। হট ব্যাগের মধ্যে গরম পানি নিয়ে পেটের ওপর দিতে পারেন। এটি আপনার ব্যথা অনেকটা কমিয়ে দেবে। এছাড়া গরম পানি দিয়ে গোসলও করতে পারেন। এটিও আপনার পেটের ব্যথা কমিয়ে কিছুটা স্বস্তি হবে।

 

২। দুধ

প্রতিদিন সকালের নাস্তায় এক গ্লাস দুধ পান করুন। এটি আপনার শরীরের ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করবে। যদি আপ৬।আকুপাংচার থেরাপি: কিছু কিছু আকুপাংচার পয়েন্ট তলপেটের যন্ত্রণা কমায়। এই সব পয়েন্টে আকুপাংচার করালে খুব ভাল ফল পাবেন। ওষুধের থেকে ন্যাচারাল আকুপাংচার পদ্ধতি অনেক উপকারী।

 

৩। সুবিধাজনক অবস্থানে শুয়ে থাকুন

মাসিকের সময় বিভিন্ন অবস্থানে শুয়ে থাকলে অনেক সময় আরাম পাওয়া যায় কিছুটা। এই অবস্থা এক এক জনের ক্ষেত্রে এক এক রকম। তবে সাধারণত পাশ ফিরে শুয়ে হাঁটু ভাজ করে বুকের কাছাকাছি এনে শুয়ে থাকলে সাময়িক প্রশান্তি পাওয়া যায়।

 

৪। ম্যাসাজ

মাসিকের সময় অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে শরীর ম্যাসাজ করিয়ে নিন। কারণ মাসিকের সময় পুরো শরীর ম্যাসাজ করিয়ে নিলে শরীর শিথিল থাকে এবং তলপেট ব্যথা কিছুটা কম হয়। ফলে এ  সময় বেশ প্রশান্তি পাওয়া যায়।

 

৫। আদা

আদা বেশ উপাকারী ঋতুস্রাবের ব্যথা রোধের জন্য। আদা চা পান করলে এই সময় বেশ ভাল উপকার পাওয়া যায়। এছাড়া কয়েক টুকরো আদা গরম পানিতে সেদ্ধ করে চাইলে এর সাথে মধু বা চিনি যোগ করে এটি দিনে তিন-চারবার পান করতে পারেন।

 

৬। পেঁপে

ঋতুস্রাবের ব্যথা রোধের জন্য পেঁপে খাওয়া বেশ কার্যকরী। ঋতুস্রাবের সময় নিয়মিত কাঁচা পেঁপে খান। কাঁচা পেঁপে মাসিকের ব্যথা কমিয়ে দেয়।

 

৭। ল্যাভেন্ডার অয়েল

মাসিকের ব্যথার সময় পেটে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মালিশ করুন। ১০- ১৫ মিনিটের মধ্যে এটি আপনার ব্যথা কমিয়ে দেবে অনেকখানি।

 

৮। প্রচুর পানি এবং পানীয় জাতীয় খাবার খান

দেহের শুষ্কতারোধে প্রচুর পরিমাণ পানি এবং পানিজাতীয় খাবার খান। কেননা এই সময়টায় শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। এছাড়া এই সময় ভিটামিন এবং মিনারেল-জাতীয় খাবার খাওয়া জরুরী। প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় মিনারেল। ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার রাখার চেষ্টা করুন।

 

Contributor: Ishrat Jahan Kashfia

Bangladesh University of Professionals (BUP)

আরও গল্প

একটা মুভি দেখা কি এতই ...

এই কি জীবনের সব?

কেন আমি কখনো বৃষ্টিতে ভিজতে ...

আরও গল্প

অ্যাজমার চিকিৎসা

হেলথকেয়ার ব্লগ
2 days ago

10 ways to keep your mind sharp!

হেলথকেয়ার ব্লগ
6 days ago

কোমর ব্যথায় করণীয়

হেলথকেয়ার ব্লগ
1 week ago

হঠাৎ হাঁচি আসলে কি করণীয়?

হেলথকেয়ার ব্লগ
1 week ago